ব্রণ হলে কি করতে হবে?

ব্রণ

ব্রণ হলে কি করতে হবে? আমাদের অনেকেরই ব্রণ সমস্যা | সাধারণত আমাদের মুখে ব্রণ বের হয়  অতিরিক্ত তৈলাক্তর ত্বকের কারণে | তৈলাক্ত ত্বকে ধুলাবালি জমাট বাধে এবং সেখানে জীবাণু বাসা করে | ঠিক এই কারণেই আমাদের ব্রণ বের হয় | আজ আমরা জানবো বাড়িতে বসে কিভাবে আমাদের ব্রণ দূর করতে পারি | 

 

ব্রণ দূর করার পদ্ধতি

 

ব্রণ দূর করার জন্য আমাদের যা যা লাগবে

  • লেবু 
  • দারচিনি 

 

আমরা প্রথমে দারচিনিকে সুন্দর করে গুঁড়া করে নিবো তারপর গুঁড়ো করা দারচিনির সঙ্গে লেবুর রস দিয়ে সুন্দর করে মিশ্রণ করে নিবো | মিশ্রণ করা শেষ হলে আমাদের যে স্থানে ব্রণ বের হয়েছে ঠিক ওখানে লাগিয়ে নিবো এই মিশ্রণটি আমরা রাতে আমাদের ত্বকে লাগিয়ে ঘুমাইতে পারি | এই পদ্ধতি আপনারা একটি মাস প্রয়োগ করুন ইনশাআল্লাহ আপনারা ফলাফল পেয়ে যাবেন |

 

এখন আমরা যানবো ব্রণ দূর করার দ্বিতীয় পদ্ধতি

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~

আমাদের দ্বিতীয় পদ্ধতি হলো লেবু এবং মধু

 

প্রথমে আমরা এক চা চামুস মধু নিবো এবং এক চা চামুস লেবুর রস নিবো | লেবুর রস এবং মধু ভালো করে মিশ্রণ করতে হবে | আপনি যখন দেখবেন লেবুর রস এবং মধুটি সুন্দর একটি লিকুইড এ পরিণত হয়েছে বুঝে নিবেন এটি ব্যবহার যোগ্য হয়ে গিয়েছে |  এটি আপনার ত্বকে ২০ থেকে ২৫ মিনিট দিয়ে রাখুন । তারপরে আপনার সমস্ত মুখ টি ভালো করে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন ।এটি ব্যবহারের ফলে আপনার মুখের ব্রণ এবং কালো দাগ আস্তে আস্তে চলে যাবে। এই পদ্ধতি আপনি সপ্তাহে ৪ থেকে ৫ দিন ব্যবহার করুন।

 

এখন আমরা যানবো ব্রণ দূর করার তৃতীয় পদ্ধতি

 

টুথপেস্ট

 

আপনাদের বাড়িতে যে টুথপেস্ট ওই দিয়ে টুথপেস্ট আপনার ব্রণ আপনি দূর করতে পারেন | টুথপেস্ট ব্যবহার করার সময় মাথায় রাখতে হবে যাতে অন্য কোথাও না লাগে | অন্য কোথাও লাগলে আপনার ত্বক নষ্ট হয়ে যাবার সম্ভবনা থাকতে পারে | সেই জন্য এই পদ্ধতি আপনাকে খুবই সতর্কতার সজ্ঞে করতে হবে |

 

এখন আমরা যানবো ব্রণ দূর করার চতুর্থ পদ্ধতি

 

রসুন

 

প্রথমে আমরা একটি রসুন নিবো রসুনের খোসা ভাল করে ছুঁলে নিবো। রসুনটি কে পরিস্কার পানি দিয়ে ধুয়ে নিব। রসুনের কোয়াটি লম্বা বরাবর ধরে কেটে নিবে | তারপর আমাদের ত্বকের যে ইস্থানে বর্ণটি বের হয়েছে সেখানে রসুনের কাটা অংশটি লাগাতে হবে | রসুনের কাটা অংশটি ত্বকের যে ইস্থানে বর্ণটি বের হয়েছে সেখানে ৫থেকে ১০ মিনিট ঘষতে হবে অথবা লাগিয়ে রাখতে হবে । এই পদ্ধতিটি আপনারা রাতে ঘুমানোর আগে করবেন ইনশাআল্লাহ ভালো ফলাফল পাবেন | আপনাদের মুখ টি ঠাণ্ডা পানি দিয়ে পরিষ্কার করে তারপর ব্যবহার করবেন | 

 

   এখন আমরা যানবো ব্রণ দূর করার পঞ্চম  পদ্ধতি

 

নিমপাতা এবং হলুদ

 

প্রথমে আমরা কাঁচা হলুদ এবং নিমপাতা নিবো | নিমপাতা এবং কাঁচা হলুদ পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে নিবো | এ টিকে আমরা বেলেন্ডার দিয়ে পেস্ট করে নিবো | আমরা সিল পাটা ব্যবহার করবো না | সিল পাটা ব্যবহার করলে ত্বক জ্বলবে তাতে করে ত্বকের আরো বেশি ক্ষতি হবে | পেস্টি মুখে ২৫থেকে ৩০  মিনিট দিয়ে রেখে দিবো | ২৫থেকে ৩০  মিনিট হয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ টি পরিষ্কার করে নিবো | আর হে এই পদ্ধতি অবলম্বন করার আগে মনে করে আপনার মুখ পরিষ্কার করে নিবেন | নিয়মিত অবলম্বন করতে থাকেন ভালো কিছু ফলাফল পাবেন |

 

    এখন আমরা যানবো কিভাবে বরফ দিয়ে ব্রণ দূর করতে হয়

 

বরফ

প্রথমে একটুকরো বরফ নিবো শুধু বরফের টুকরো ব্রণের ওপরে ধরবো না |পরিষ্কার কাপড় দিয়ে বরফটিকে মোড়াবো | এর পরে আমাদের ত্বকের যে ইস্থানে ব্রণ বের হয়েছে ১৫থেকে ২০ সেকেন্ড ধরে রাখবো | তাতে করে আমাদের ব্রণের ফোলা কমে যাবে | দই, বেসন, হলুদ, এবং মধু ফেসপ্যাক এই ফেসপ্যাকটি তৈরী করার জন্য আমাদের যা যা লাগবে | 

 

আমাদের সবার বাড়িতেই বেসন,টক দই,হলুদ,এবং মধু আছে | প্রথমে দুই চা চামস বেসন হলুদ, দুই চা চামস টক দই নিবো অল্প সামান্য হলুদ,এবং মধু নিবো | সবগুলো উপাদান এক সজ্ঞে করে সুন্দর ভাবে মিক্স করে নিবো | মিশ্রণটিতে আমার কাঁচা দুধ বা লেবুর রস ও বেবহার করতে পারি | মিক্সার করা শেষ হলে ভালো করে আমাদের মুখে ও গলায় দিয়ে দিবো | না শুকানো অবধি আমরা অপেক্ষা করবো শুকিয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে এইটাকে আস্তে আস্তে তুলে ফেলবো |  আমরা সবাই জানি দই এ ভিটামিন A এবং ভিটামিন C তে ভরপুর | বেসন ত্বকের অতিরিক্ত তেল শুষে নেয় ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়িয়ে তোলে আর দই আমাদের ত্বক নরম ও নমনীয় রাখে | এই দুই উপাদান আমাদের মুখের ব্রণ দূর করতে অনেক বেশি সাহায্য করে | আপনারা চাইলে এই ফেসপ্যাকটি সপ্তাহে ২থেকে ৩ দিন ব্যবহার করতে পারেন | ব্রণ কমে আসলে আপনারা সপ্তাহে ১ দিনও ব্যবহার করতে পারেন।

 

শশার রস দিয়ে কিভাবে ব্রণ দূর করা যায়?

 

সাধারণত শশার রস ত্বকের তৈলরক্তকর দূর করতে অনেক ভূমিকা রাখে |প্রতিদিন আমরা বাহির থেকে কাজ শেষ করে বাড়িতে এসে শশার রস দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে নিবো | তার সজ্ঞে আমরা আরো একটা কাজ করতে পারি এ টিকে আমরা বরফ বানিয়েও ব্যবহার করতে পারি এতে করে আমাদের যে ওপেন পোর্সের সমস্যা আছে সেটার ও সমাধান হয়ে যাবে |

 

তুলসী পাতার রস দিয়ে কিভাবে ব্রণ দূর করা যায়?

 

আমরা সবাই অবগত আছি যে  তুলসী পাতার রস ব্রণ দূর করার জন্য অনেক বেশি উপকারী | তুলসী পাতাই আছে আয়ুর্বেদিক |

আমাদের ত্বকের যে স্থানে ব্রণ বের হয়েছে তুলসী পাতার রস লাগিয়ে রাখবো যতক্ষণ না শুকায় আমরা অপেক্ষা করবো | শুকিয়ে গেলে কুসুম কুসুম গরম পানি দিয়ে আমরা আমাদের মুখ ধুয়ে ফেলবো | 

 

  মুলতানি মাটির কার্যকারিতা 

 

মুখের তেলরক্তকর ভাব দূরকরতে আমরা মুলতানি মাটি ব্যবহার করতে পারি | এতে করে আমাদের মুখের তেলতেলে ভাব দূর হবে | 

মুলতানি মাটি আমরা যে ভাবে ব্যবহার করবো | প্রথমে একটি পাত্র নিবো পরিমান মতো মুলতানি মাটি নিবো পরিমাণ মতো পানি দিয়ে মিক্স করবো |সুন্দর একটি পেস্ট তৈরি হলে আমরা আমাদের মুখে লাগাবো | মুলতানি মাটি আমাদের ত্বকের অতিরিক্ত তেল দূর করতে অনেক বেশি সাহায্য করে থাকে | 

 

পুদিনা পাতা

 

গরমকালে আমাদের মুখে যেভাবে ব্রণ বের হয় এই ব্রণ যেন বের হতে না পারে সে জন্য আমরা পুদিনা পাতা ব্যবহার করতে পারি | পুদিনা পাতা ব্যবহার করার নিয়ম, পরিমান মতো পুদিনা পাতা নিবো তারপরে পুদিনা পাতা বেলেন্ডার করে নিবো | ত্বকের যে ইস্থানে ব্রণ বের হয়েছে ওই খানে আমরা লাগিয়ে দিবো | ২০ থেকে ৩০ মিনিট লাগিয়ে রাখবো |এরপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলবো | ব্রণ কমানোর জন্য আপাদের সজ্ঞে আমি বেশ কিছু টিপস শেয়ার করলাম | আপনাদের কাছে যে টিপসটা ভালো লাগবে এবং যে উপাদানটি আপনার হাতের কাছে থাকবে আপনারা ওই টিপসটি ব্যবহার করবেন | 

 

এখন আমি আপনাদের সজ্ঞে ব্রণ কোমানোর আরো বেশ কিছু টিপস শেয়ার করবো 

 

  • যতটুকু পারেন তেল যুক্ত খাবার থেকে বিরত থাকুন 
  • প্রতিদিন ঘুমানোর আগে একটি ফল খাবেন 
  • আপনারা প্রতিদিন ১০ থেকে ১২ গিলাস পানি খাবেন 
  • ঘুমানোর আগে প্রতিদিন মুখ ভালো করে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন 

ধন্যবাদ সবাইকে আমাদের সাইটে আসার জন্য, প্রয়োজনে আমাদের সাইটটি বুকমার্ক করে রাখতে পারেন।

Leave a Comment